রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয় : বাংলাদেশের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী এবং প্রাচীন একটি নগরী হল রাজশাহী। উত্তরবঙ্গের সবচেয়ে বড় শহর রাজশাহী পদ্মা নদীর তীরে অবস্থিত। রাজশাহী শহর বেশকিছু পণ্যের জন্য বিখ্যাত। রাজশাহী সিল্কের নাম কিনা শুনেছে। এছাড়াও রাজশাহী আকর্ষণীয় রেশমি বস্ত্র, আম, লিচু এবং মিষ্টান্ন সামগ্রীর জন্য সবার নিকট অধিক পরিচিত। রাজশাহী শহর এবং তার আশেপাশে কিছু বিখ্যাত স্থাপনা রয়েছে। বাংলাদেশের সকল শহরগুলোর মধ্যে রাজশাহী সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন এবং সবুজ শহর। Read in English

রাজশাহী শহরকে অনেকগুলো নামে ডাকা হয়। কখনো কখনো রাজশাহীকে বলা হয় রেশমি নগরী, কখনো রাজশাহী শহরের নাম হয়ে ওঠে সিল্কসিটি, কখনো বা রাজশাহী কে শিক্ষানগরী বলে ডাকা হয়। রাজশাহী নগরীর আরো একটি নাম রয়েছে যা তাকে শুধুমাত্র দেশে নয় সারা বিশ্বের নিকট পরিচিত করেছে সেটি হল গ্রীন সিটি। সারা বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার এবং বায়ু দূষণ মুক্ত শহরগুলোর মধ্যে সর্ব প্রথমে রয়েছে রাজশাহী শহর। আমাদের আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমরা আপনাকে জানাবো রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয়। 

রাজশাহী জেলার নামকরণ

প্রাচী শব্দটি বিশ্লেষণ করলে দুটি ভিন্ন ভাষার অর্থবোধক শব্দ সংযোজক দেখা যায়। সংস্কৃত ভাষার শব্দ রাজ এবং ফারসি শব্দ শাহ যুক্ত হয়ে রাজশাহী শব্দটি তৈরি হয়েছে। উভয় শব্দের অর্থ বাদশাহ ও বাদশাহ। বাংলা ভাষায় যেমন আমরা একই সাথে একই অর্থের শব্দ উচ্চারণ করে থাকে তেমনি ভাবে হয়তো আছে শব্দটি তৈরি হয়েছে। যেমনভাবে অনেক ক্ষেত্রে আমরা বলে থাকি ভুল ত্রুটি, বিপদ আপদ, ধারদেনা ইত্যাদি। দুইটি শব্দের অর্থ কিন্তু এক ঠিক তেমনিভাবে যাচ্ছে শব্দটিও হয়তো এসেছে। রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয়। 

রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয়
রাজশাহী শহর

বলা হয়ে থাকে এখানে বহু রাজা জমিদারের বসবাস ছিল বলেই এর নাম রাখা হয় রাজশাহী।

রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয়

রাজশাহী শহর বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় সীমান্তবর্তী একটি জেলা। পদ্মা নদীর তীরে অবস্থিত এই জেলাটি চারপাশে সবুজ দিয়ে ঘেরা। রাজশাহী জেলার উত্তরে রয়েছে নওগাঁ জেলা। পূর্বে নাটোর পশ্চিমে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা এবং দক্ষিনে রয়েছে পদ্মা নদী। রাজশাহী শহরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আম গাছ। আমের জন্য রাজশাহী জেলা বিখ্যাত। মূলত আমাদের আজকের এই আলোচনার মূল বিষয় হল রাজশাহীকে ক্লিন সিটি কেন বলা হয়। রাজশাহীকে গ্রীন সিটি বলার কারণ সমূহ নিয়েই আজকের আলোচনা করছি। রাজশাহী জেলার পরিচয় এবং অবস্থান সম্পর্কে কিছু তথ্য আমরা জানলাম। তাহলে চলুন মূল আলোচনায় আসা যাক। রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয়। 

গ্রীন সিটি রাজশাহী

রাজশাহীকে সবুজ নগরী বলে ডাকা হয়। বাংলাদেশ তথা বিশ্বের সকল শহর থেকে রাজশাহী শহরে বায়ু দূষণের মাত্রা কম। এই শহর পরিষ্কার। বাংলাদেশ বা বিশ্বের অন্যান্য দেশে যখন বায়ু দূষণের মাত্রা বেড়েই চলেছে তখন বিশ্বের অনন্য এক স্বীকৃতি পেয়েছেন আছে শহর। এই শহরে বায়ু দূষণের মাত্রা মাত্র ৬৭.০১% । রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয় । 

রাজশাহী শহরের অপরিকল্পিত নগরায়নের কারণে পরিবেশ দূষণ হতে পারে না।

বিশ্বের অন্যতম পরিষ্কার শহর গুলোর মধ্যে রাজশাহী একটি। সিটি কর্পোরেশনের দক্ষ পরিচালনার জন্য যেকোনো ময়লা-আবর্জনা নিমিষের মধ্যে নির্ধারিত স্থানে পৌঁছানো হয়। যার ফলে এই ময়লা-আবর্জনা কোন শহরের বাতাসকে দূষিত করতে পারে না। আপনি রাজশাহী শহরের অভ্যন্তরে কোথাও ময়লা আবর্জনার স্তুপ দেখতে পাবেন না। যদিও কখনো ময়লা আবর্জনার স্তুপ রাখা হয় তবে নির্ধারিত সময়ের পূর্বে তারা সেখান থেকে স্থানান্তরিত করা হয়। রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয় ।

Why-Rajshahi-is-called-Green-City
সবুজ রাজশাহী শহর

এই দক্ষ পরিচালনা এবং নিয়ম-কানুন মানার ফলে রাজশাহীকে গ্রীন সিটি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়েছে।

পরিষ্কার শহর রাজশাহী

রাজশাহী শহর এর চারপাশ সবুজে ঘেরা। রাজশাহী শহর থেকে বাইরে বের হলেই চারপাশে নজরে আসবে বড় বড় আমের বাগান। এই আমের বাগান গুলো যেন শেষ হতে চায় না। রাজশাহীকে গ্রীন সিটি হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে এই আমবাগান গুলোর ভূমিকা অনেক। রাজশাহীর আম দেশ বিখ্যাত। বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আমের চাষ হলেও রাজশাহীর আমের একটা আলাদা সুনাম রয়েছে। এই আম স্বাদে-গুনে অনন্য। রাজশাহী শহর কে বিখ্যাত করে তুলেছে যে সকল পণ্য গুলো তার মধ্যে এই জেলার আম অন্যতম। রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয়।

উপসংহার

রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয় এই প্রশ্নের উত্তর জানার জন্যই আমরা আজকে আলোচনাটি সাজিয়েছিলাম। আশা করি আমরা আপনাকে এই প্রশ্নের উত্তর প্রদান করতে পেরেছি। আমাদের প্রশ্নের উত্তর থেকে অবশ্যই আপনারা উপকৃত হয়েছেন। কাশী শহর সম্পর্কে আরও বিস্তারিত তথ্য সমূহ আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন প্রশ্নের মাধ্যমে জানিয়েছি। রাজশাহীকে গ্রীন সিটি কেন বলা হয় এই প্রশ্নের উত্তর যেমন আপনারা আমাদের আজকের এই আলোচনা থেকে জানতে পারলেন তেমনি রাজশাহীর আরো সকল তথ্য সমূহ জানতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।

বাংলাদেশের যে কোন প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন সম্পর্কে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারবেন। আলোচনার কোনো অংশে বুঝতে সমস্যা হলে অবশ্যই আপনারা কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আমরা আপনাদের যেকোনো বিষয়ে সর্বাত্মক সাহায্য করার চেষ্টা করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.