বাসা বদল এমন একটি ঘটনা যিনি একবার করেছেন তিনি আর চান না তার জীবনে দ্বিতীয়বার আর এই ঘটনার আবির্ভাব হোক। বাসা বদলানো সম্পর্কে অবগত সবাই শুধু কম আর বেশি শুধু এতটুকুই। এক একটা জিনিস ঠিক ঠিক জায়গায় রাখা সহজ কথা নয় সেটা আলমারি থেকে আলপিনই হোক না কেন।সবকিছু গুছিয়ে পরিপাটির সাথে স্বস্থির শ্বাসের সাথে বাসা বদলানোর জন্য লেখাটি হতে পারে অনেক কার্যকরী। Read in English

কিছুদিন আগে এক একজন পরিচিতির সঙ্গে গল্প করছিলাম। সে অবশ্য বাসা বদলেছেন। তার কাছে বাসা বদল সম্পর্কে জানতে চাইলে বা কোন টিপস নিতে চাইলে তিনি বলেই দিলেন যে সবাই কি করে? আলমারি, ওয়ারড্রব, আলনা থেকে সব বের করে কার্টুনের ঢুকায়। তারপর নতুন বাসায় গিয়ে সেসব কে ঠিকঠাকমতো মত রাখার চেষ্টা করে। কিন্তু এর মাঝে দেখা যায় যে সব কিছু ঠিকঠাক থাকলেও কিছু কার্টুন হারিয়ে যায় সেটার খোঁজ অনেক পাওয়া যায় না। তবে আমি অবশ্য এইসব করিনি। সবকিছুকে গুছিয়ে কস্টেপ দিয়ে আটকিয়ে দরজা বন্ধ করে তালা মেরে দিয়েছি। আবার দড়ি দিয়েও বেধেছিলাম তৃতীয় পর্যায়ের সতর্কতা হিসেবে। যখন বাসা বদলে চলে গেলাম তখন সেসব দড়ি আর কস্টেপ খুলে ফেলেছি।এটা খুব কার্যকরী তবে কতটা কাজে লাগবে সেটা নির্ভর করবে আপনার উপর।

বাসা পরিবর্তনের সময় যা খেয়াল রাখা জরুরী

আবার বাসা বদলানোর সময় যে সবকিছুই নিয়ে আসা লাগবে পুরাতন বাসা থেকে তা কিন্তু নয়। যেসব জিনিস কম প্রয়োজনীয় বা অপ্রয়োজনীয় বা পুরনো জিনিস সেগুলো ফেলে দিতে পারেন বা বিক্রিও করা যেতে পারে। কিংবা কারো দরকার হলে তাকে দিয়ে দেয়াও যেতে পারে। এতে নতুন বাসা অনেকটা ফাকা থাকবে দেখতেও ভাল লাগবে। নিজেরও টানাটানির ঝামেলা অনেক কমে যাবে

কিসে কি রাখছেন সেটা মার্কার দিয়ে জিনিসপত্র কার্টুনে উঠানোর পরে লিখে রাখা ভাল।

দরজাজানালার মাপ নিয়ে পর্দা বানাতে দেয়া উচিত নতুন বাসার যাওয়ার আগেই। যাতে রোদের তাপ এবং ধুলাবালি থেকে প্রতিরোধ করা যায়। আবার ঘরকে মনোরম ভাবে সাজানোর কাজ ও করা যাবে গোপনীয়তা বজায় রেখে।

ফ্রিজ ফাকা করে ফেলতে হবে কিছুদিন আগে থেকে যেমনমাছ,মাংস, সবজি সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সব কিছুই। আর যেদিন বাসা বদলানো হবে ঠিক তার আগের দিন শুধু লাইন বন্ধ করে দিন। পরবর্তী দিনে সকালবেলায় শুধুমাত্র বরফের গলে যাওয়া পানি ভালো করে মুছে নিন। নতুন বাসায় উঠার কয়েক ঘন্টা পর ফ্রিজ চালু করা উচিত। কম্প্রেসর ভালো রাখার জন্য নতুন বাসায় উঠে সাথে সাথে ফ্রিজ চালু না করাই ভালো। তাতে কম্প্রেসর দীর্ঘদিন চলবে।

নতুন বাসা যেভাবে গোছাবেন

বাসায় উঠে নতুন করে মুছে পরিষ্কার করে ঘরে জিনিসপত্র তুলা উচিত। যদি সম্ভব হয় তবে অবশ্যই উঠার অন্তত দুইদিন আগে নতুন বাসাতে জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটানো উচিত যেমন তেলাপোকা মারা ওষুধ, ন্যাপথলিন এবং এরোসল স্প্রে করা উচিত।

বাসা বদলের সময় অবশ্যইএকটি প্রাথমিক প্রয়োজনীয় ইমার্জেন্সি কিট বা ইমার্জেন্সি ব্যাগ রাখা উচিত। যেখানে নিত্যপ্রয়োজনীয় কিছু জিনিস যেমন পানি, ঘরের চাবি, টাকা, ওষুধ, সানস্ক্রিন সহ আরো জিনিস রাখা যাবে।

নতুন বাসায় ইলেকট্রিক সংযোগ লাগানো নিয়ে যাতে কোন ঝামেলা বা বিপাকে পড়তে না হয় সে ব্যবস্থা করা উচিত। এমনকি নতুন বাসায় প্রবেশের আগেই পরিচিত বা এলাকার ইলেক্ট্রিশিয়ানের সাথে কথা বলে রাখা ভালো। যদি কাছাকাছি বাসা হয় তবে পুরাতন বাসার কিছু জিনিস অর্থাৎ ফ্যান, লাইট, গ্যাস যে খুলবেন তাকে সাথে রাখায় ভালো।

শুধু এই কয়েকটি জিনিস মাথায় রাখলেই বাসা বদলানোর সময় কোন বিপাকে পড়তে হবে না আপনাক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.