ডোমেইন কি? ওয়েবসাইট লঞ্চ করার জন্য প্রথমে যা জানা দরকার তা হলো ডোমেইন এবং হোস্টিং কি। ডোমেইন হোস্টিং সেবা দানকারী এমন অনেক প্রতিষ্টান আছে যেখান থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং ক্রয় করে নিতে হয়। একটি ওয়েবসাইট চালানোর জন্য ডোমেইন এবং হোস্টিং কি এ সম্পর্কে জ্ঞান থাকা প্রয়োজন। ডোমেইন এবং হোস্টিং কি এবং ডোমেইন এবং হোস্টিং কি ভাবে কাজ করে বিস্তারিত আমাদের ওয়েবসাইটে আলোচনা করা হয়েছে। এই পোষ্টের মাধ্যমে আমরা ডমিন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরব। এবং পরবর্তী আলোচনায় আমরা হোস্টিং সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরবার সুতরাং এই পোস্টটি সম্পুর্ণ পরে আপনি দ্বিতীয় পোস্টে অগ্রসর হবেন। Read in English

ডোমেইন কি

ডোমেইন (Domain): প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটের একটি নির্দিষ্ট আইপি ঠিকানা থাকে, যেমনঃ 65.210.159.255.। কিন্তু আইপি অ্যাড্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট মনে রাখা অনেক কষ্টের ব্যাপার। এজন্য মনে রাখার সুবিধার্থে আইপি অ্যাড্রেস এর পরিবর্তে ডোমেইন নেম ব্যবহার করা হয়। এছাড়া এক বা একাধিক কমপিউটার কে ইন্টারনেট এ চেনার জন্যও ডোমেইন নেম ব্যবহার করা হয়। সাধারণত ডোমেইন নেম বলতে কোন ওয়েবসাইটের নাম কে বোঝানো হয়। যেমন, facebook.com, google.com, youtube.com ইত্যাদি। প্রত্যেকটি মানুষ, প্রাণি বা বস্তুর একটি ডাক নাম থাকে যে নামে ঐ মানুষ, প্রাণি বা বস্তুকে চেনা যায়। তেমনি প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটেরও একটি নির্দিষ্ট নাম রয়েছে। Symbolics.com এটি হল প্রথম বাণিজ্যিক ডোমেইন নেম। যা ক্যাম্ব্রিজের কম্পিউটার ফার্ম সিম্বোলিক্স ১৫ মার্চ ১৯৮৫ তারিখে TLD com তে নিবন্ধন করে। ডিসেম্বর ২০০৯ সালে প্রায় ১৯০ মিলিয়ন ডোমেইন নেম নিবন্ধিত হয়।

স্মার্টফোনের বিকল্প হিসেবে নতুন প্রযুক্তির ভবিষ্যৎবাণী করলেন বিল গেটস

ডোমেইন এর কাজ কি – ডোমেইন কিভাবে কাজ করে

আমরা যখন আমাদের ওয়েব ব্রাউজারে ডোমেইন নেম লিখে এরপর এন্টার বাটন চাপ দিলে আসলে কি ঘটে তা জানলেই ডোমেইন নেম কিভাবে কাজ করে তা বুঝতে পারবো। নিচের চিত্রটি খেয়াল করুন তাহলে ব্যাপারটা বুঝতে সুবিধা হবে।

ডোমেইন কি? ডোমেইন এর কাজ কি?

আমরা যখন কোন ওয়েবসাইট ভিজিট করার জন্য যেকোন ব্রাউজারে ওয়েব এড্রেস লিখে এন্টার বাটনে চাপি, তখন সবার প্রথমে ব্রাউজার আইপি এড্রেস অনুসন্ধান করে এবং এটি বিশ্বব্যাপী নেটওয়ার্কের কাছে একটি অনুরোধ প্রেরণ করে যা পরে ডোমেইন নেম সিস্টেম (DNS) এ পরিবর্তন করে ফেলে।
এই সার্ভার গুলি তখন ডোমেইনের সাথে যুক্ত নেম সার্ভারগুলি সন্ধান করে এবং সেই নেম সার্ভারগুলিতে অনুরোধটি ফরওয়ার্ড করে দেয়। এবং এই নেম সার্ভার গুলিই হলো কম্পিউটার, যে গুলো হোস্টিং কোম্পানি পরিচালনা করে। এবং পরে হোস্টিং কোম্পানি অনুরোধটি সেই কম্পিউটারে ফরওয়ার্ড করবে যেখানে ওয়েবসাইটি সংরক্ষিত করা আছে।
এরপর ওয়েব হোস্ট অনুরোধে ওয়েবসাইটের ফাইলগুলওকে ব্রাউজারে প্রেরণ করে যার ফলে আমরা ওয়েবসাইটটি দেখতে পাই।

SSC short syllabus 2022 PDF Download

ডোমেইন এর প্রকারভেদ

বিভিন্ন প্রকারের ডোমেইন আছে। এক্সটেনশনের উপর ভিত্তি করে ডোমেইন চার ধরণের।

  • টপ লেভেল ডোমেইন
  • কান্ট্রি লেভেল ডোমেইন
  • ফ্রি ডোমেইন
  • সাব ডোমেইন

টপ লেভেল ডোমেইন

যেই এক্সটেনশনওয়ালা ডোমেইনের মূল্য সবচে বেশি তাকে টপ লেভেল ডোমেইন বলা হয়। এ ধরণের ডোমেইন টাকা দিয়ে কিনতে হয়। সার্চ ইঞ্জিন এ ধরণের ডোমেইন কে বেশি গুরত্ব দিয়ে থাকে এবং ভিজিটররাও এ ধরণের ডোমেইনকে বেশি চেনে। এগুলো হলো .com, .org, .info, .net ইত্যাদি টপ লেভেল ডোমেইনের উদাহরণ।

ডোমেইন কি? ডোমেইন এর কাজ কি?

কান্ট্রি লেভেল ডোমেইন

যেসব এক্সটেনশনওয়ালা ডোমেইনগুলো নির্দিষ্ট দেশকে ইঙ্গীত করে তাকে কান্ট্রি লেভেল ডোমেইন বলা হয়। একটি কান্ট্রি লেভেল ডোমেইনওয়ালা ওয়েবসাইট যেকোনো টপ লেভেল ডোমেইনওয়ালা ওয়েবসাইট থেকে অধিক ভিজিটর আনতে সক্ষম। যেহুতু কান্ট্রি লেভেল ডোমেইনগুলো নির্দিষ্ট দেশের মানুষকে টার্গেট করে সেহুতু একাধিক দেশের জন্য বানানো ওয়েবসাইটে কান্ট্রি লেভেল ডোমেইন ব্যবহার না করাই ভালো। বাংলা দেশের জন্য .bd, ইন্ডিয়ার জন্য .in, যুক্তরাষ্ট্রের জন্য .us ইত্যাদি এক্সটেনশন এগুলা হলো কাট্রি লেভেল ডোমেইনের উদাহরণ।

গুগল একাউন্ট এবং জিমেইল একাউন্ট এর মধ্যে পার্থক্য

ফ্রি ডোমেইন

এমন অনেক এক্সটেনশনওয়ালা ডোমেইন আছে যেগুলো টাকা দিয়ে কিনতে হয় না। ভিবিন্ন ওয়েবসাইট থেকে এসব ডোমেইন ফ্রিতেই রেজিস্ট্রেশন করা যায়। এর মধ্যে freenom.com অন্যতম। .tk, ml, .cf ইত্যাদি এক্সটেনশনওয়ালা ডোমেইন হলো ফ্রি ডোমেইনের উদাহরণ। প্রাক্টিস অথবা শখের বসে যদি ওয়েবসাইট বানান তাহলে আপনি একটি ফ্রি ডোমেইন ব্যবহার করতেই পারেন। তবে প্রফেশনালি কোনো কাজের জন্য ওয়েবসাইট বানাতে গেলে কিছু টাকা খরচ করে একটি টপ লেভেল এর ডোমেইন কিনে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

সাব ডোমেইন

সাব ডোমেইন কোন প্রতিষ্ঠান থেকে আলাদাভাবে কিনে নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। একটি ডোমেইন কিনে নিলে সেই ডোমেইনের মধ্যেই একাধিক সাব ডোমেইন তৈরি করা যায়। উদাহরণ হিসেবে themessagehour.com এই ডোমেইনটিকে ধরা যায়। এই ডোমেইনটি আমি কিনে নিয়েছি এখন এই ডোমেইনের আন্ডারে en.themessagehour.com এই সাব ডোমেইন ব্যবহার করেছি। এরকম একাধিক ডোমেইন ক্রিয়েট করতে পারবো।

BUET Admission Circular 2021-2022

প্রিমিয়াম ডোমেইন

প্রিমিয়াম ডোমেইন হলো সেই ধরণের ডোমেইন, যে ডোমেইনগুলো হাই রেটিংওয়ালা। বিভিন্ন ডোমেইন এর মালিকরা তাদের মেধাকে এবং পরিশ্রমকে কাজে লাগিয়ে একটি সাধারণ ডোমেইনকে হাইরেটিং ডোমেইনে পরিনত করে তারপর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বা ব্যক্তির কাছে অনেক বেশি দামে বিক্রি করে দেয়।

ডোমেইনের বিকল্প কি কিছু আছে?

এই প্রশ্নের উত্তর হলো হ্যা আছে। তবে সেই বিকল্প পদ্ধতিটা অনেক বেশি জটিল। মনে করেন আপনার জন্মের পরে আপনার বাব মা আপনাকে কোনো নাম দেয়নি এখন লোকজন আপনাকে কি নামে ডাকবে? অমুক এলাকার তমুকের ৩ নাম্বার ছেলে। এরকম কিছু একটা। তখন লোকের আপনাকে চিনতে যেকরম ঝামেলা হবে তার চেয়েও অনেক বেশি ঝামেলা হবে। এই বিকল্প পদ্ধি ব্যবহার করতে গেলে। প্রত্যেকটা ওয়েবসাইটের একটি নির্দিষ্ট আইপি অ্যাড্রেস আছে যা দেখতে অনেকটা এরকম 00.534.629.54.66. আর এভাবে মনে রাখা বেশ কষ্টকর। তাই এ সমস্যার সমাধান করার জন্য ডোমেইন এর উতপত্তি ঘটেছে।

কেউ চাইলে আইপি এড্রেস ব্যবহার করে ওয়েবসাইট বানাতে ও ভিজিট করতে পারবে। তবে এই যুগে এত ঝামেলার মধ্যে যাওয়া সত্যিই বড্ড বেমানান।

আমাদের আজকের আলোচনায় আমরা ডোমেইন সম্পর্কে বিস্তারিত সকল তথ্য তুলে ধরেছি। আপনি যদি আমাদের আলোচনাটি সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তবে ডোমেইন সম্পর্কে সকল তথ্য জানতে পারবেন বলে আশা করা হচ্ছে। আমরা পরবর্তী আলোচনায় হোস্টিং সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেছি। সুতরাং হোস্টিং সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে এখানে ক্লিক করুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.