ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায় : অভিজ্ঞ চিকিৎসক এবং পুষ্টিবিদরা বলে থাকেন ওজন কমানোর জন্য কখনো তাড়াহুড়া করা উচিত নয়। ধীরে ধীরে চেষ্টার মাধ্যমে ওজন কমালে বেশি কাজে আসে। তাই হুট হাট ব্যায়াম করে ঘাম নাজরে অল্প করে খাদ্যাভ্যাস এবং জীবন জাপনে পরিবর্তন ঘটিয়ে ওজন কমানো শ্রেয়। ব্যায়াম ছাড়াও ওজন কমানো সম্ভব। ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমাতে সাহায্য করবে এরকম কিছু তথ্য নিচে দেয়া হল। এই ধারণাগুলোর মাধ্যমে আপনি সহজেই কোন রকম ব্যায়াম ছাড়াই আপনার ওজন কমাতে পারবেন। Read in English

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

ধীরে ধীরে খাবার খান

ওজন কমানোর জন্য সব সময় ধীরে ধীরে খাবার খাওয়া উচিত। দ্রুত খাবার খেলে আমরা অনেক সময় প্রয়োজনের অধিক খেয়ে ফেলি। সেজন্য আমাদের উচিত আস্তে আস্তে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা যার ফলে ঠিকমতো ভরবে এবং অতিরিক্ত খাবার খাওয়া হবে না। জাপানের এক বিশ্ববিদ্যালয়ের সমীক্ষায় দেখা গেছে, যে সকল ব্যক্তিরা ধীরে খাবার খান তাদের ওজন দ্রুত খাবার খাওয়া ব্যক্তিদের থেকে কম হয়। তাই আমাদের সকলের উচিত অতিরিক্ত ওজন কমাতে ধীরে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা। ধীরে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলার মাধ্যমে আমরা সহজেই ওজন কমাতে পারবো। ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

জগিং

জগিং হালকা একটি ব্যায়াম। ছোট থেকে বড় সকল সুস্থ মানুষ বন এই ব্যায়াম করতে পারেন। সকালে হালকা জগিং এর মাধ্যমে শারীরিক গঠন ঠিক রাখার সম্ভব। এবং হালকা জগিং এর মাধ্যমে অতিরিক্ত চর্বি ও ঝরে পড়ে। তাই অতিরিক্ত ওজন কমানোর জন্য আমরা এই ছোট ধরনের ব্যায়ামগুলো করতে পারি। ছোটখাটো ব্যাংকগুলোর মধ্যে জগিং অন্যতম।

নাচ

না আজ এর মাধ্যমে আপনার শরীর ঠিক রাখা সম্ভব। অতিরিক্ত ওজন কমানোর জন্য এটি একটি ভাল পদ্ধতি হতে পারে। আপনি যদি নাচ না জেনে থাকেন তারপরেও গানের তালে হালকা- পা দোলাতে পারেন। জুম্বা নাচ অনুশীলনের মাধ্যমে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। এই নাচ তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে। ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

ঘর পরিষ্কার রাখুন

ঘরবাড়ি পরিষ্কার রাখার মাধ্যমে ও ওজন কমানো সম্ভব। নিয়মিত ছোট ছোট কাজগুলো সম্পন্ন করুন যার ফলে আপনার শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমবে। তাই এখন থেকেই নিজের ঘর বিছানার টেবিল সবকিছু পরিষ্কার রাখুন। এবং ছোটখাটো কাজগুলো করার মাধ্যমে আপনার শরীরের মেদ কমান।

দ্রুত রাতের খাবার খাওয়া

রাতে যত দ্রুত সম্ভব খাবার খেয়ে নিতে হবে। খাবার খেয়েই শুয়ে পড়া যাবে না। খাবারের পর পরই শুয়ে পড়া স্থূলতার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। গবেষণাতে জানানো হয়েছে সন্ধ্যা ছয়টা থেকে সাতটার মধ্যে খাওয়া হলে কম ক্যালোরি গ্রহণ করা হয় এবং শরীর তা সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারে। রাতে খাবার খাওয়ার পরপরই ঘুমিয়ে পড়লে শরীরে অতিরিক্ত ক্যালোরি জমা হয়ে মেদ তৈরি করতে পারে। ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

শীতে ওজন কমানোর সহজ উপায়

শীতকাল ওজন কমানোর সব থেকে ভালো সময়। শীতকালে সঠিক এবং কম ক্যালরিযুক্ত খাবার গ্রহণ করলে খুব সহজে অতিরিক্ত ওজন কমানো যায়। শীতকালে প্রচুর পরিমাণে শাকসবজি পাওয়া যায়। এবং এই সকল শাক-সবজিতে প্রচুর পরিমাণে শর্করা আমিষ ভিটামিন ও প্রচুর পরিমাণে পানি থাকে। এই শাক সবজির উপাদান গুলো শরীরের গঠন ঠিক রাখার সাথে ওজন কমাতেও সমানভাবে কাজ করে। ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

তাই শীতকালকে ওজন কমানোর জন্য সঠিক সময় হিসেবে নির্বাচন করতে পারেন। বেশি পরিমাণে শাকসবজি খেয়ে মাছ মাংস থেকে দূরে থেকে আপনার ওজন কমাতে পারেন।

টক দই এর মাধ্যমে ওজন কমানোর উপায়

টক দই এর মাধ্যমে ওজন কমানো সম্ভব। টক দই অধিক পরিমাণে উপকারী ব্যাকটেরিয়া থাকে সেগুলো আমাদের শরীর থেকে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া দূর করে। এছাড়াও টকদই প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে যা শরীরের অতিরিক্ত মেদ জমা হতে দেয় না। টক দই দুধ থেকে তৈরি হলো এতে কম পরিমাণে ফ্যাট থাকে। ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

চর্বিতে থাকার পর্টিশন নামক হরমোন বাড়াতে কাজ করে কিন্তু টকদই থাকা ক্যালসিয়াম এই হরমোন তৈরি হতে বাধা দেয় যার ফলে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। তবে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে অতিরিক্ত টক দই আমাদের শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই অভিজ্ঞ কারো পরামর্শ অনুযায়ী সঠিক পরিমাণে নিয়মিত টক দই খেয়ে ওজন কমানো সম্ভব।

লেবু দিয়ে ওজন কমানোর উপায়

অতিরিক্ত ওজন কমানোর জন্য লেবু অত্যন্ত কাজের। লেবুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বিদ্যমান জামার স্থূলতা কমাতে সাহায্য করে। দ্রুত ওজন কমাতে লেবুকে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখা উচিত। নিয়মিত লেবু খাওয়ার মাধ্যমে আমরা সহজেই অতিরিক্ত মেদ ঝরিয়ে স্থূলতা কমাতে পারি। ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

এছাড়াও ওজন কমানোর বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে। অনেকেই জিমে গিয়ে শারীরিক পরিশ্রমের মাধ্যমে বা ব্যায়ামের মাধ্যমে ওজন কমাতে পারেন। যেভাবেই হোক ওজন কমিয়ে আমাদের সকলের সুস্থ ও সুন্দর জীবন যাপন করা উচিত। মনে রাখবেন অতিরিক্ত ওজন কখনোই কাম্য নয়। তাই নির্দিষ্ট নিয়ম অনুসরণ করে সকলের উচিত অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলা।

তাই আমাদের আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমরা ব্যায়াম ছাড়াও কিভাবে অতিরিক্ত ওজন কমানো যায় সে বিষয়ে আলোচনা করেছি। আলোচনা সম্পর্কিত যে কোন প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই আমাদের জানাতে পারেন। আমরা আপনাদের সর্বদা সাহায্য করতে প্রস্তুত। এছাড়াও স্বাস্থ্য বিষয়ে যে কোন বিস্তারিত তথ্য জানতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য সকলকে ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.