কাঁচা হোক বা পাকা বাঙালির কাছে কলার গুরুত্ব টা সব সময় বেশি। কলা যেমন সুস্বাদু তেমনি স্বাস্থ্যকর একটি খাবার। তবে কলার খোসা কি কোন কাজে আসে? বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আমরা কলা খাওয়ার পরে খোসাটা ফেলে দিয়ে থাকি। আজ আমি আপনাদের জানাব কলার খোসার নানাবিধ ব্যবহার। এই তথ্যগুলো জানার পরে কলার খোসায় আপনার কাছে হয়ে উঠবে এক গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। চলুন তাহলে কলার খোসার গুরুত্বপূর্ণ সকল ব্যবহার সম্পর্কে আমরা জেনে নেই। Read in English

peeled-banana-yellow-background

ছবিঃ ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত

দাঁতের উজ্জ্বলতা বাড়াতে

দাঁতের হলুদ ভাব দূর করতে কলার খোসা ভালো কাজ করে থাকে। ব্রাশ করার আগে কলার খোসার ভেতরের দিক দিয়ে কিছুক্ষণ দাগ মাজার পর ৫ থেকে ১০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন। এই ৫ থেকে ১০ মিনিট সময় অবশ্যই চেষ্টা করবেন ঠোঁট যথাসম্ভব খোলা রাখার। টানা এক সপ্তাহ পেস্ট ব্রাশ দিয়ে দাঁত মাজার পূর্বে এমন ভাবে কলার খোসা দিয়ে দাঁত মাজলে পরিবর্তনটা নিজে ভালোভাবে বুঝতে পারবেন।

images-3

ছবিঃ ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত

প্রাথমিক চিকিৎসায়

কলার খোসা অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ভরপুর। এই উপাদান সাধারণত প্রাথমিকভাবে জ্বালাপোড়া ও পোকামাকড়ের কামড়ের থেকে মুক্তি দেয়। তাই আপনার শরীরের কোথাও পোকামাকড় কামড়ালে বা জ্বলুনি হলে প্রাথমিকভাবে সেখানে কলার খোসা ঘষলে আরাম পাবেন।

জুতা পালিশ করতে

জুতা নিয়মিত পরিষ্কার না করলে বা পালিশ না করলে তার অবস্থা বেহাল হয়ে যায়। সাধারণত আমরা জুতা পালিশ করতে বা পরিষ্কার করার জন্য বাক্স-পেটরা খুলে বসে পড়ি অথবা চলে যায় মুচির কাছে। তবে একটা কলার খোসার ভেতরের অংশ দিয়ে আপনি জুতা খুব সহজেই পলিশ করে ফেলতে পারবেন। এবং তাতে আপনার জুতা নতুনের মত চকচক করবে। তবে অবশ্যই কাঁচা কলার থেকে পাকা কলার খোসা এক্ষেত্রে বেশি কার্যকরী।

image-42823-1536566880-2101141844

ছবিঃ ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত

বাগান পরিচর্যায়

প্রাকৃতিক সার হিসেবে কলার খোসা খুব ভালো কাজ করে। কলার খোসায় রয়েছে পটাশিয়াম এবং ফসফরাসের মতো গুরুত্বপূর্ণ উপাদান সমূহ। এ সকল উপাদান বাগানের সকল গাছের বৃদ্ধিতে প্রয়োজনীয়। এছাড়াও কলার খোসা বাগানের বিভিন্ন গাছপালা করে আক্রমণ থেকে রক্ষা করে থাকে। গাছ থেকে অ্যাফিড জাতীয় পোকামাকড় দূর করতে কলার খোসা মাটিতে পুঁতে রাখলে খুব ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। অ্যাফিড জাতীয় পোকামাকর সমূহ গাছের নিচের পানি শুষে নিয়ে গাছ কে মেরে ফেলে। মাটিতে কলার খোসা পুতে রাখলে অ্যাসিড জাতীয় পোকামাকড় গাছের আশেপাশে আসতে পারে না।

image61ae085e87568

ছবিঃ ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত

ময়েশ্চারাইজার হিসেবে

কলার মত এর খোসা দেও বিভিন্ন প্রকার এমাইনো এসিড ভিটামিন এ বি সি ও ই সমৃদ্ধ। শুষ্ক ত্বকের জন্য কলার খোসা বেশ উপকারী। শীতকালে অনেকের পায়ের গোড়ালি ফেটে যায়। এক্ষেত্রে কলার খোসা খুব ভালো কাজ করে। পাকা কলার খোসা পায়ের গোড়ালিতে ঘষলে শুষ্কতা দূর হয়।

new-project-6-jpg-710x400xt

ছবিঃ ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত

প্রোটিনের উৎস হিসেবে

কলার মত এর খোসা তেও প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে। প্রোটিনের জন্য যদি আমরা কলা খেতে পারি তাহলে কলার খোসা কেন খাব না? তাই কলার খোসা ভালোমতো ধুয়ে সবজি কিংবা জুস হিসেবেও খাওয়া সম্ভব।

ঘরবাড়ি ও অলংকার এর সৌন্দর্য বাড়াতে

ঘরে বিদ্যমান বিভিন্ন আসবাবপত্র শোপিস পরিষ্কারের কাজে কলার খোসা ভালো কাজ করে। কলার খোসায় থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বিভিন্ন আসবাবপত্রের ওপর জমে থাকা অনেকদিনের ময়লা পরিষ্কার করে। এছাড়াও পাকা কলার খোসা দিয়ে রুপার অলংকার ঘষে পরিষ্কার করলে তা টেকসই ও মসৃণ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.