৩ লক্ষ দক্ষ চালক তৈরীর লক্ষ্যে কাজ করছে বাংলাদেশ সরকার এমনটাই জানিয়েছেন বিআরটিসি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনা একটি বড় আকারে সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিনিয়ত আমরা টিভি বা পেপার পত্রিকা খুললেই দেখতে পাই অদক্ষ চালক এর অসাবধানতায় প্রাণহানি ঘটছে। প্রতিদিন দেশের কোথাও না কোথাও অদক্ষ চালক এর জন্য বড় বড় দুর্ঘটনা সংঘটিত হচ্ছে। যার ফলে দুর্ঘটনার কবলে পড়া ব্যাক্তিগন হয় প্রাণ হারাচ্ছে নয়ত সারা জীবনের জন্য পঙ্গুত্ব বরণ করছে। Read in English

এর থেকে তাহলে সমাধানের উপায় টা কি??

আসল সমস্যাটা হচ্ছে অদক্ষ চালক দ্বারা গাড়ি চালানো। বর্তমান সরকার সমস্যাটি আমলে নিয়ে তিন লাখ দক্ষ চালক তৈরীর লক্ষ্যে একটি নতুন প্রকল্প হাতে নিয়েছে।

২৫ জন নারী চালকের সনদপত্র বিতরণ

রোববার সকালে নগরীর মাহিগঞ্জ এলাকায় বিআরটিসি’র প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধন ও প্রথম পর্যায়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করা ২৫ জন নারী চালকের সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বিআরটিসি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম এসকল কথা বলেন। তিনি আরো বলেন নারীরা আর পিছিয়ে নেই পূর্বে চালকের আসনে শুধু ছেলেরাই বসত কিন্তু এখন সেখানে মহিলারা বসবে সেজন্য আমরা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এর সাথেও কাজ করছি যাতে করে নারীরা দক্ষ চালক হয়ে উঠতে পারে। তাছাড়া আমরা রংপুরে বিআরটিসির আলাদা ডিপো নির্মাণ করার জন্য জায়গা সন্ধান করছি।

তিনি বক্তব্যে আরও জানান পূর্বে বিআরটিসি বাস সমূহ অনেক লসে চলাচল করত কিন্তু বর্তমানে বিআরটিসি বাসের অবস্থান অনেক ভালো এবং লাভজনক ব্যবসা করছে। প্রতি মাসে সকল খরচ বাদ দিয়ে সরকারি কোষাগারে জমা হচ্ছে চার কোটি টাকা। ঢাকা ছাড়া বগুড়া, দিনাজপুর, রংপুর, রাজশাহী ইত্যাদি ডিপো থেকে অনেক ভাল ব্যবসা হচ্ছে। যে সকল বাস সমূহ পূর্বে অচল অবস্থায় ছিল আমরা সেগুলো কে সচল করছি।এবং প্রয়োজনে আমরা আরো নতুন বাস সংযোজন করব। বিআরটিসি’র অনেক বাস আছে যেগুলো আমরা আর ব্যবহার করছি না কারণ সেগুলো ব্যবহার অনুপযোগী।

ফিটনেস বিহীন গাড়ি রাস্তায় চলবে না

আগামী ৩১ শে মার্চের পরে রাস্তায় কোনো অচল গাড়ি চলাচল করতে দেওয়া হবে না কেননা সরকার সড়ক দুর্ঘটনার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করছে। এবং একইসাথে দক্ষ চালক তৈরিতে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছে যাতে করে রাস্তায় আর পূর্বের ন্যায় দুর্ঘটনার শিকার হতে না হয়। বর্তমানে বাংলাদেশের প্রতিটি ট্রেনিং সেন্টারে এবং বিআরটিএ-তে অত্যন্ত দক্ষতার সহিত চালকদের পরীক্ষা গ্রহণ করা হচ্ছে এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করা হচ্ছে।

পূর্বের ন্যায় সকল প্রতিষ্ঠান দালাল মুক্ত করা হচ্ছে যাতে করে অদক্ষ এবং অযোগ্য চালক তৈরি হতে না পারে। প্রতিনিয়তই আমরা বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে টিভি চ্যানেলে দেখতে পাই অদক্ষ চালক এর গাফিলতির কারণে অনেক প্রাণহানি ঘটছে। একজন অদক্ষ চালক কর্তৃক যদি কখনও একটি পরিবারের একজন উপার্জনকারী ব্যক্তি নিহত হয় তখন শুধু সেই ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করেন না তার পুরো পরিবারটি সে মৃত্যুর বোঝা বহন করে তাই সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দক্ষ চালক নিয়োগের ক্ষেত্রে যথাযোগ্য সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.