গত ২ দিন আগে খুলনা তেরখাদা উপজেলার কুশলা গ্রামে একটি পুকুরে মনি মুক্তা নামের জমজ দুই বোনের মরদেহ ভাসতে দেখা যায়। তাদের বয়স ছিল দুই মাস। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছিল উক্ত খুন এর পিছনে পারিবারিক কলহ জড়িত কিন্তু পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য। আপন মা নিজেই তার যমজ সন্তান দুটিকে হত্যার পর পুকুরে ফেলে আসে। কানিজ ফাতেমা কনা নামের সেই মেয়েটি এখন পুলিশ হেফাজতে।  তার স্বামীর নাম মাসুম বিল্লাহ একই উপজেলায় তার বাসা দুই সন্তানের মৃত্যুর পর মৃতের বাবা বাদী হয়ে মাকে আসামি করে পুলিশের কাছে অভিযোগ  করেন। এরই ধারাবাহিকতায় পুলিশ অভিযানে নামে। Read in English

মায়ের হাতে যমজ সন্তান খুন

এক সময় কানিজ ফাতেমা কে জিজ্ঞাসাবাদের সময় তিনি তার নিজের সন্তানকে খুনের কথা স্বীকার করেন। কানিজ ফাতেমা কনা তার মায়ের বাসায় থাকতেন এবং মাসুম বিল্লাহ থাকতেন তার নিজ বাসায় দুজনের মাঝে  পারিবারিক কলহ লেগে থাকত। সন্তান পেটে আসার পরে কানিজ ফাতেমা কণাকে তিনি তার মায়ের বাসায় রেখে আসেন।সেখানেই মনি মুক্তা নামের যমজ সন্তান ভূমিষ্ঠ হয় বাচ্চা হওয়ার পর কানিজ ফাতেমা কনা তার স্বামীকে তাদের নিজ বাসায় নিয়ে যাওয়ার জন্য বললেও তার স্বামী রাজি হচ্ছিলেন না। তিনি মানসিকভাবে একটু চিন্তিত ছিলেন। অন্যান্য দিনের মতো তিনি তার দুই সন্তানকে নিয়ে রাত্রে ঘুমাচ্ছিলেন গভীর রাতে যখন ঘুম ভাঙ্গে তখন তিনি তাদের চুপ করানোর জন্য বুকের দুধ খাওয়ান। এতে যখন তার সন্তানরা চুপ করছিলোনা তখন তিনি শ্বাসরোধ করে তাদের খুন করেন- এবং বাচ্চা হারিয়ে যাওয়ার নাটক সাজান। নিজের দুই সন্তানকে হত্যার পর তিনি পুকুরে ফেলে আসেন এবং সবাইকে বলেন তার বাচ্চা হারিয়ে গেছে ।

সন্তান কোথায় নিরাপদ?

এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তেরখাদা থানার উপ-পরিদর্শক এসআই এনামুল হক জানান বাচ্চা দুটির সব সময় কান্নাকাটি করত এ নিয়ে কনা বিরক্ত ছিলেন কয়েকদিন আগে তিনি স্বামীকে ফোন করে তাদের বাবার বাড়ি থেকে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেন  মাসুম বিল্লাহ পহেলা মার্চ তাদেরকে নিয়ে যাওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে মনি-মুক্তা ঘুম থেকে জেগে যায় এবং কান্নাকাটি শুরু করে তখন দুধ খাইয়ে তিনি ঘুম পাড়ানোর চেষ্টা করেন।  কান্না না থামায় নাক মুখ চেপে ধরে তিনি হত্যা করেন তিনি আরো জানান কোরআনের সন্তানদের হত্যা করার পর পানিতে ফেলে আসে এবং নাটক  সাজায় যে তার বাচ্চা দুটো উধাও হয়ে গেছে।

আপন জন্মদাত্রী মায়ের এমন কর্মকাণ্ডে নেটদুনিয়া সহ সারা দেশে যেনো আতঙ্কিত। একটি সন্তান যখন ভূমিষ্ঠ হয় তখন সবথেকে বেশি নিরাপদ থাকে তার মায়ের কোলে কিন্তু আপনি যখন নিজ সন্তানদের এমন নির্মম ভাবে হত্যা করতে পারে তখন সন্তানরা আসলে কার কাছে নিরাপদ?

Leave a Reply

Your email address will not be published.