সম্প্রতি করণা ভ্যাকসিনের সাথে যে কন্সপিরেসি থিউরি জুড়ে দেওয়া হয়েছে তা হলো করণা ভ্যাকসিন এর মাধ্যমে মাইক্রোচিপ মানবদেহে ঢুকিয়ে দিচ্ছে বলে আমাদের দেশ সহ বিশ্বের অনেক দেশর জনগন দাবি করেছেন। যদিও দাবিটা পক্ষে কোনো সুস্পষ্ট যুক্তি প্রমাণ নেই বরং এটি একটি নিছক গুজব। অনেকে এসব গুজব চারিদিকে ছড়িয়েছে। আজ আমরা মাইক্রোচিপ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য এখানে তুলে ধরব। এবং আপনাদের জানাব মানব শরীরে মাইক্রোচিপ বসানো ভালো হবে না খারাপ হবে। সুতরাং আমাদের এই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন Read in English

মাইক্রোচিপ কি?

মাইক্রোচিপ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য বলার আগে আমাদের জেনে নেওয়া উচিত মাইক্রোচিপ আসলে কি।

মাইক্রোচিপ

মাইক্রোচিপ হল ছোট্ট একটি ইলেকট্রিক ডিভাইস। যা সিলিকনের মত উপাদান থেকে ছোট পরিসরে তৈরি করা হয়েছে। মানব শরীরে মাইক্রোচিপ ব্যবহারকে বিজ্ঞানের ভাষায় বায়ো হ্যাকিং টেকনোলজি বলা হয়। সংক্ষেপে বায়ো হ্যাকিং হচ্ছে মানব শরীরের অভ্যন্তরে কোন ডিভাইস বসানো। মাইক্রোচিপ দেখতে একটি চালের দানার সমান। ছোট এই ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস টি আরএফআইডি পদ্ধতিতে কাজ করে যেটি আমরা এটিএম কার্ড, ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করি সে একই প্রযুক্তি। শুধুমাত্র এটি হাতের ভিতর প্রবেশ করানো হয়েছে একটা ভ্যাকসিনের মতো এটি দীর্ঘদিন হাতের মধ্যে থাকলেও ক্ষতির সম্ভাবনা কম। বায়ো ম্যাক্স ইন্টারন্যাশনাল নামে একটি কোম্পানি সুইডেনে কাজ শুরু করেছে এর ফলে সুইডেনে ইতিমধ্যে ৪০০০ হাজার মানুষ এটি তাদের হাতে ব্যবহার করেছে। জাগরে 180 ডলার খরচ পড়েছে

ভার্চুয়াল রিয়েলিটি কি? এটি কিভাবে কাজ করে।

মাইক্রোচিপ এর সুবিধা

মাইক্রোচিপ বা আরএফআইডি চিপ একটি দরকারি হাতিয়ার হতে পারে বিশেষ করে যখন জরুরি অবস্থার কথা আসে সেখানে সঠিক চিকিৎসা তথ্যের তাৎক্ষণিক এক্সেস এর প্রয়োজন হয়। মাইক্রোচিপের আরো কিছু সুবিধা নিচে উল্লেখ করা হলো

মানিব্যাগ হারানো থেকে মুক্তি

আমরা আমাদের দৈনন্দিন অনেক কাজের জন্য আমরা বিভিন্ন আরএফআইডি কার্ড অর্থাৎ ডেবিট কার্ড ক্রেডিট কার্ড বিভিন্ন ব্যাংকের কার্ড ব্যবহার করে থাকি যা আমাদের দোকানে জিনিসের জন্য অর্থ প্রদান গণপরিবহন গ্রহণ ভবন গুলিতে প্রবেশ এবং লাইব্রেরী থেকে বই ধার করার জন্য ব্যবহার করি। এই প্লাস্টিকের কার্ড গুলির সমস্যা হল যে আমরা সেগুলি হারিয়ে ফেলতে পারি অথবা আমাদের কাছ থেকে সেগুলো চুরি হয়ে যেতে পারে আবার অনেক সময় তাড়াহুড়োতে বাসায় ফেলে রেখে চলে যাই। কিন্তু এই মাইক্রোচিপ ব্যবহার করলে তা হারানো বা চুরি হওয়ার কোন ভয় থাকবে না।

বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ

মাইক্রোচিপ

মাইক্রোচিপ আমরা বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহের কাজে ব্যবহার করতে পারি। যেমন ধরুন আপনি আব্বুআম্মুর সাথে পানি যে ডাক্তারের কাছে যাচ্ছেন কাদের কাদের রিপোর্ট কার্ড নিয়ে যাওয়াটা অনেকটা ঝামেলার আর হারিয়ে গেলে তো মাথায় হাত দেওয়া ছাড়া আর কিছু করার থাকে না। কিন্তু মাইক্রোচিপ ব্যবহার করলে আপনি খুব সহজেই সকল ডকুমেন্ট এরমধ্যে নিয়ে যেতে পারবেন।

রোগী, শিশু এবং অপরাধীর উপর নজর রাখা

শিশুদের হাসপাতালে ভর্তি হওয়া বয়স্ক বা হাসপাতালে রোগীদের কি আর সুবিধা থেকে বেরিয়ে আসা বা অপরাধীদের কারাগার থেকে পালানো এটি অস্বাভাবিক নয়। শিশুদের ভিড়ে হারিয়ে যাওয়া বাড়ি থেকে পালানো বা অপহরণ করা অস্বাভাবিক নয়। এক্ষেত্রে মানুষকে ট্র্যাক করতে পারো মানে লক্ষ লক্ষ যত্নশীল পরিবারের সদস্য এবং পিতামাতার জন্য মানসিক শান্তি। অপহরণের ক্ষেত্রে প্রথম চার ঘণ্টার সবচেয়ে গুরুতর। কারণ সাধারণত সেই সময়ের মধ্যেই ঘটে কিন্তু একটি মাইক্রোচিপ লাগানো থাকলে আপনি যেকোনো সময় তাকে ট্র্যাক করতে পারবেন। সুতরাং আপনার সন্তান হারিয়ে গেলে বা জেল থেকে কোনো আসামি পালিয়ে গেলে খুব দ্রুত তাকে ট্র্যাক করে খুঁজে বের করা সম্ভব।

কিউআর কোড কি? কিভাবে QR Code তৈরি করবেন

স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডিভাইস নিয়ন্ত্রন

আপনি কল্পনা করুন আপনার গাড়ি স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হচ্ছে। আপনি সামনে যেতেই দরজা খুলে দিচ্ছে, আপনি বসার সাথে সাথে আপনার প্রিয় টিভি চ্যানেল টি শুরু হচ্ছে অথবা আপনার থার্মোস্ট্যাট নিশ্চিত করছে যে আপনি কাজ থেকে বাড়ি আসার সময় তাপমাত্রা ঠিক আছে কিনা। হ্যাঁ এই সবকিছুই নিয়ন্ত্রণ সম্ভব শুধুমাত্র একটি মাইক্রোচিপ ব্যবহার করে।

মাইক্রোচিপ এর অসুবিধা

অনেক সুবিধার পাশাপাশি মাইক্রোচিপ ব্যবহারে কিছু অসুবিধাও রয়েছে। নিচে তা উল্লেখ করা হলো

ইনফেকশন

অদক্ষ কোন ফিজিশিয়ান দিয়ে এটি ইমপ্লিমেন্ট করা হলে এবং সঠিকভাবে তার শরীরের ভিতরে প্রবেশ করানোর না হলে অনেক সময় ইনফেকশন দেখা দিতে পারে। যা মানবদেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

এমআরআই মেশিন (MRI)

মাইক্রোচিপ

যেহেতু এমআরআই স্ক্যান আর একটি অত্যন্ত শক্তিশালী চুম্বক ব্যবহার করে তাই যেসকল রোগীর শরীরের ভেতরে এই মাইক্রোচিপ থাকবে তাদের এমআরআই স্ক্যান করা চলবে না। কারণ এতে মেডিকেল ডিভাইসটির তার স্থান থেকে সরে যেতে পারে অথবা অস্বাভাবিক উত্তপ্ত হতে পারে এছাড়াও এমআরআই ছবির মানে হস্তক্ষেপ করতে পারে। যদিও মাইক্রোচিপের ক্ষেত্রে এমআরআই মেশিনের স্ক্যান করার সময় কোন সমস্যা হবে কিনা এ ব্যাপারে কোনো স্পষ্ট উত্তর জানা নেই তারপরও অনেকে ধারণা করেছেন এর ফলে ঝুঁকি সৃষ্টি হতে পারে।

ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি

ক্যান্সার আক্রান্ত হবার ঝুঁকি সংক্রান্ত একটি সব প্রকাশিত প্রতিবেদনে অ্যান্টি আরএফআইডি অ্যাডভোকেট ক্যাথরিন আলব্রেক্ট আরএফআইডি ডিভাইসগুলোকে গুপ্তচর চিপস বলে উল্লেখ করেছেন। মাইক্রোচিপ

তিনি 1996 থেকে 2006 সাল পর্যন্ত ইঁদুর ও কুকুরের উপর গবেষণার ভিত্তিতে জানান, যে স্থানে মাইক্রোচিপ ইনজেক্ট করা হয়েছে সেখানে ক্যান্সারের টিউমার ডেভলপ করেছে। যদিও এ দাবির বিপরীতে অনেক বিজ্ঞানী স্পষ্ট জানিয়েছেন যে কুকুরের ওই ঘটনার সাথে মানবদেহের কোন সম্পর্ক নেই

ব্যক্তিগত গোপনীয়তা লঙ্ঘন এবং হ্যাকিং এর ঝুঁকি

মাইক্রোচিপ গুলি তাদের ধারকের সম্মতি ছাড়াই অপ্রত্যাশিত উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা যেতে পারে অর্থাৎ কর্মীদের দরজা খোলার জন্য বা মধ্যভোজনের জন্য অর্থ প্রদানের জন্য ব্যবহৃত একটি মাইক্রোচিপ পরে কর্মীর বাথরুম এবং মন্তব্য জলের বিপরীত গোপনে ট্র্যাক করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। ফলে তাদের গোপনীয়তা লঙ্ঘন হতে পারে।

ব্যক্তি স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ

এটি কোন ব্যক্তির শরীরে প্রবেশ করতে বাধ্য করা হলে এবং পড়ে তার উপর সার্বক্ষণিক নজর রাখা হলে ওই ব্যক্তির ব্যক্তি স্বাধীনতা নষ্ট হয়। ইন্দোনেশিয়ায় সম্প্রতি যৌন অপরাধীর উপর এই প্রযুক্তি প্রয়োগ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এই মাইক্রোচিপ এর অনেক সুবিধা যেমন কার্ড এক্সেস পাওয়া বিল রিসিভ এবং পেমেন্ট এ ব্যবহার করা ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং ট্রেভল কার্ড হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তেমনি কিছু ঝুঁকি ও অসুবিধা রয়েছে যেমন হাতের মধ্যে থেকে সরে গিয়ে শরীরের অন্য কোথাও চলে যেতে পারে হাতে ইনফেকশন হতে পারে ব্যাক্তিস্বাধীনতা লংঘন হতে পারে এছাড়াও হ্যাকিংয়ের সমস্যা তো আছেই।

পরিশেষে স্বীকার করতে হয় মাইক্রোচিপ এর ব্যবহার ব্যাপক এটি পশুপাখি ট্রেকিং করতে মালামাল পরিবহন এবং আরো নানা কাজে ব্যবহৃত হতে পারে ভবিষ্যতে হয়তো মোবাইল ও অন্যান্য ডিভাইস এর পরিপূরক হিসেবে মাইক্রোচিপ দেখা যেতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published.