ইউরোপের বিভিন্ন দেশ সমূহের উপরে ঝড় ইউনিস আঘাত হানে। বিশেষ করে ইউরোপের পশ্চিমাঞ্চলে দেশসমূহের উপরে ইউনিস এর প্রভাব ছিল সবথেকে বেশি। আটলান্টিক মহাসাগরীয় শক্তিশালী ঝড় ইউনিসের তাণ্ডবে ইউরোপের পশ্চিমাঞ্চলে অন্তত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। জার্মানির শহর ইউরোপের বিভিন্ন দেশের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঝড় ইউনিস এর প্রভাবে লন্ডভন্ড সবকিছু। বর্তমানে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬ আহত হয়েছে শতাধিক এরও বেশি এবং পানিবন্দি হয়েছে লক্ষাধিক। Read in English

ঘূর্ণিঝড় ইউনিস এর তান্ডব

১২২ মাইল গতিতে বয়ে যাওয়া ঝড় টি সমস্ত দেশটিকে লন্ডভন্ড করে গেছে। এতে উপকূলের বড় বড় ঢেউ আছড়ে পড়ে। ঝড়ের কবলে পড়ে গাছ উপড়ে গিয়ে এবং অত্যধিক গতিতে বাতাসের প্রভাবে মানুষের প্রাণহানি ঘটে। প্রবল বেগে বাতাস বহমান হওয়ার জন্য বিভিন্ন স্থানে মৃতের সংখ্যা এবং ধরন প্রায় একই রকম। যে কয়টি মৃত্যু ঘটেছে তার সবগুলোই গাছ উপড়ে। বেলজিয়াম, আয়ারল্যান্ড, নেদারল্যান্ড সহ বিভিন্ন স্থানে গাছের নিচে চাপা পড়ে মারা গেছে বেশ কজন জার্মানি এবং ইউরোপের বাসিন্দা।

ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এরই মধ্যে অনেক স্কুল প্রতিষ্ঠান সহ অফিস-আদালত বন্ধ ঘোষণা করেছে। বিভিন্ন বন্দর বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে এবং কর্মীদের নিরাপদ স্থানে যেতে বলা হয়েছে। তাছাড়া জার্মানি এবং ইউরোপের বিভিন্ন ফ্লাইট পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। প্রথমে নিহতের সংখ্যা ৮ জন শোনা গেলেও মৃতের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়ছে। সর্বশেষ ঘোষণা মতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬ জনে। উদ্ধার কার্যক্রম এখনো চলছে।

ইউনিস ঝড়ে মৃতের সংখ্যা ১৬

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বিভিন্ন স্থানে আবাসস্থল সহ অনেক প্রতিষ্ঠান ভেঙে পড়েছে। রাস্তার উপরে গাছ পড়ে রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।  ঝড়ের কবলে লক্ষাধিক মানুষ ঘর হারা হয়ে এখন রাস্তায়। তাদের বাড়িঘর ঝড়ের প্রভাবে ভেঙ্গে পড়েছে আর্থিকভাবে কয়েক শহরের মানুষ করেছে ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন।প্রবল জলোচ্ছাসে এবং পানির কারণে বিভিন্ন মার্কেট বাড়িঘর রাস্তাঘাট পানির নিচে তলিয়ে গেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে কয়েকদিন সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার প্রধানরা দেশটির সরকার আশঙ্কা করছে ৯০ কোটি ইউরো বেশি ক্ষতি সাধন হয়েছে। যা পূর্বের কোন ঝড় জলোচ্ছ্বাসে এতটা ক্ষতিসাধন করে নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.