অনলাইন উপার্জন

অনলাইনে টাকা ইনকাম করার উপায় ( Online Earning Way)

অনলাইন শব্দটির সাথে আমরা কমবেশি পরিচিত আর এই অনলাইন এর সাথে যুক্ত হয়ে ইনকাম করাকে বলে অনলাইন ইনকাম। অনলাইন ইনকাম শব্দটি আমরা কমবেশি সকলেই শুনেছি কিন্তু এ সম্পর্কে সবার ধারণা আর মাঝে যথেষ্ট পার্থক্য রয়েছে। Read in English

অনেকে মনে করে অনলাইনে ইনকাম বলতে কিছুই নেই আবার অনেকে ভাবেন অনলাইনে ইনকাম করার কষ্টকর ব্যাপার। আবার অনেকে বলে মোবাইলে ইনকাম সম্ভব না। আবার অনেকে টাকা ইনভেস্ট করেও কিছু শিখতে পারেনি। তবে আমাদের এরকম ধারনা ভুল। অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা সম্ভব এবং অনেকেই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করে। আজ আমরা আপনাদের দেখাবো কিছু সহজ পদ্ধতি যার মাধ্যমে আপনি অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আমাদের আলোচনাটি সম্পূর্ণ পড়লে আপনি অনলাইনে টাকা ইনকাম করার উপায় গুলি জেনে যাবেন। সুতরাং আপনি যদি অনলাইনে আয় উপায় খোঁজেন তবে আমাদের এই নিবন্ধটির সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

কিভাবে অনলাইনে ইনকাম করা যায়

আগেই বলেছি অনলাইন থেকে ইনকাম করা সম্ভব তবে এর জন্য আপনার থাকতে হবে মনোবল সততা এবং পরিশ্রম। আর থাকতে হবে নেট কানেকশন এবং কম্পিউটার অথবা মোবাইল ফোন। তবে একটি কথা সত্য যে মোবাইল ফোন দিয়ে সব কাজ সম্ভব না কিছু কাজের জন্য আপনার কম্পিউটার প্রয়োজন। তার মানে এই না যে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করা সম্ভব না। মোবাইল ফোনের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা সম্ভব। অনলাইনে ইনকাম করার পূর্বে আমাদের একটা জিনিস জানার প্রয়োজন কেন আমরা অনলাইনে ইনকাম করব।
Untitled-design-1

আমাদের মাঝে অনেকেই স্টুডেন্ট এবং গৃহিণী তারা চায় সবসময় অন্যের কাছ থেকে হাত পেতে টাকা না নিয়ে নিজেরাই স্বাবলম্বী হতে। আবার যারা চাকরিজীবী তারা চায় যে ফিক্সড ফিক্সড ইনকাম এর বাইরে একটা এক্সট্রা ইনকাম করতে। আরে সব চাওয়া পুরন করতে অনলাইন ইনকাম সবথেকে বেস্ট একটি অপশন। কেননা এতে কোন ফিক্স সময়ের প্রয়োজন পড়ে না আপনি যেকোন সময় ইনকাম করতে পারবেন। তবে অনলাইন থেকে শুধু যে হাতখরচ আসে তা না এখান থেকে পুরো সংসার চালানোর মতো আয় করা সম্ভব। এখানে আমরা অনলাইনে ইনকামের ১০ টি সহজ উপায় সম্পর্কে আলোচনা করব সুতরাং পোস্টটি সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

অনলাইন ইনকাম এর ১০ টি উপায়

অনলাইনে ইনকামের দশটি উপায় সম্পর্কে আমরা নিচে বর্ণনা করেছি সুতরাং এই আলোচনাটি সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

মার্কেটিং করে :

বর্তমানে তথ্যপ্রযুক্তির যুগে আমরা অনেকটাই প্রযুক্তির উপর নির্ভরশীল তাই নিজেদের কেনাকাটা থেকে শুরু করে যাবতীয় কাজ আমরা অনলাইনের মাধ্যমে করছি। আর এই ক্ষেত্রে আপনি যদি হন সেলার তাহলে তো ইনকাম হবেই। অনেকে শুধুমাত্র পেজ খুলে পণ্য বিক্রি করে মাসে লক্ষাধিক টাকা ইনকাম করে বর্তমানে ত ইনভেস্ট না করেও শুধু রিসেলিং করেও অনেক ভালো পরিমাণে ইনকাম করা সম্ভব। তবে এক্ষেত্রে ধৈর্য অনেক বেশি প্রয়োজন এবং মার্কেট পলিসি জানা থাকতে হবে।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং :

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এই শব্দটা আমাদের কাছে ততটা পরিচিত নয় তবে পরিচিত না হলেও এই মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে যথেষ্ট পরিমাণ অর্থ উপার্জন করা যায় এবার আসুন এফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত ধারণা দেই। বর্তমানে হাজার হাজার মার্কেটপ্লেস এ পণ্য বিক্রি হয় এদের ইকমার্স বলা হয় আবার এসব ইকমার্স সাইট এর প্রত্যেকটি সাইটে এফিলিয়েট মার্কেটিং নামের একটি অপশন থাকে সেখান থেকে আপনি একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে তাদের পণ্যের লিংক কপি করে শেয়ার করার মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারবেন। আপনার শেয়ারকৃত লিংকের মাধ্যমে পণ্যটি বিক্রি হলে আপনি সেখান থেকে কিছু কমিশন পাবেন। তো আপনি চাইলে এখন থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারেন।

রেফার করে ইনকাম :

অনলাইন ইনকামের সবথেকে সহজ মাধ্যম হচ্ছে রেফার করে ইনকাম করা। এই যে বিকাশের অফার চালু আছে আপনি রেফার করলে আপনার রেফারি কেউ যদি অ্যাপটি ইন্সটল করে লগইন করে তাহলে আপনি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ পাবেন এবং সেটা আপনি চাইলে উইথড্র করে নিতে পারবেন। ঠিক এই বিকাশ এর মত অনেক অ্যাপ রয়েছে যেগুলো থেকে আপনি রেফার করার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন আপনি বাংলাদেশে হয়ে থাকলে সব অ্যাপ থেকে বিকাশের মাধ্যমে টাকা নিতে পারবেন। তবে এ ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ইনকাম আশা করা যাবে না। অনেক সাইট রয়েছে যেগুলো রেফার করার অনেক বেশি অর্থ দেওয়ার কথা বলে এগুলি আসলে বেশিরভাগই ভুয়া হয়।

ছবি তুলে ইনকাম করুন :

বর্তমান যুগে স্মার্টফোন ব্যবহার করে না এমন লোকের সংখ্যা খুবই কম। আপনার স্মার্টফোনের ক্যামেরা দিয়ে একটি ছবি তুলে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন। আপনি আপনার আশেপাশের সুন্দর সুন্দর এমন কিছু ইউনিক ছবি তুলে কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোতে দিয়ে আপনি ইনকাম করতে। এক্ষেত্রে আপনি যদি একটু এডিট করে ছবি আপলোড করতে পারেন সে ক্ষেত্রে আপনার ইনকাম এর পরিমাণ অনেক বেশি হবে। অনলাইনে ছবি বিক্রি জন্য বিভিন্ন ওয়েবসাইট রয়েছে তবে জনপ্রিয় হলো shutterstock, 500px, Envato ইত্যাদি এরা ফটোগ্রাফারদের সবথেকে বেশি পে করে থাকে।

ব্লগিং করে ইনকাম :

ব্লগিং অনলাইনের বেস্ট পুরাতন হলেও অনেক কার্যকরী একটি পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতে বেশ ভালো অংকের টাকা ইনকাম করা যায় তবে এক্ষেত্রে আপনার দরকার মেধা ও শ্রম এবং ধৈর্য। ব্লক একটি নিউজ পেপারের মতো আপনার জানা বিষয়টি আপনি লিখবেন সেই বিষয়টি যা জানা দরকার সে পড়বে এই যে আপনি এখন অনলাইনে ইনকাম সম্পর্কে পড়ছেন এটিও একটি ব্লগ। প্রতিটি মানুষ কোন না কোন বিষয়ে জানা শোনা হয়। আপনিও যে বিষয়ে জানেন সে বিষয়ের উপর লিখলেই শুরু করতে পারেন আপনার ইনকাম।
Untitled-design

ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম :

বর্তমানে সবথেকে বেশি লোক যেখানে কাজ করছে সেটি হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। ফ্রিল্যান্সিং করে প্রতিমাসে লক্ষাধিক টাকা ইনকাম করা সম্ভব সরকারতো ফ্রিল্যান্সিং এ সবাইকে উৎসাহ দিচ্ছে হয়তো আগামী দিনে এটি হয়ে উঠবে একটি জনপ্রিয় পেশা। ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য আপনার ইন্টারন্যাশনাল মার্কেট প্রাইস একাউন্ট থাকতে হবে যেমন ফাইবার ফ্রিল্যান্সার ইত্যাদি। এক্ষেত্রে বিদেশি বায়াররা অনলাইনের মাধ্যমে আপনাকে কাজের জন্য ভাড়া করবে। তাদের কাজ করে দিতে পারলে আপনাকে ভালো পরিমাণে এমাউন্ট দিবে। তবে ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে আপনাকে অবশ্যই যে কোন একটি বিষয়ে পারদর্শী হতে হবে যেমন গ্রাফিক্স ডিজাইন ফটো এডিটিং ওয়েব ডিজাইন ওয়েবসাইট মার্কেটিং কপিরাইটিং কনটেন্ট রাইটিং লোগো ডিজাইন ইত্যাদি।

ভিডিও দেখে অনলাইনে :

ভিডিও দেখে অনলাইনে আয় করা সম্ভব এই বিষয়টি সম্পর্কে অনেকেই জানেনা। জানলেও অনেকে বিশ্বাস করে না সত্যি বলতে অনলাইন থেকে ভিডিও দেখে ইনকাম করার বিষয়টি অনেকের কাছে বিশ্বাসযোগ্য না হলেও ব্যাপারটি কিন্তু সত্যি তবে মনে রাখবেন অনে অনলাইনে অনেক সাইট রয়েছে যারা ভিডিও দেখে ইনকাম করার কথা বলে কিন্তু এরাম হওয়া সাইট। সাধারণত এ ধরনের ওয়েবসাইট গুলো বিভিন্ন রকমের চটকদার বিজ্ঞাপন দিয়ে লোকজনকে আকর্ষিত করে এর থেকে বাঁচতে সব সময় একটা বিষয় মনে রাখবেন কখনোই কোন ওয়েবসাইট থেকে ভিডিও দেখে খুব বেশি পরিমাণে পেমেন্ট করবে না এই যখনই দেখবেন কোন ওয়েবসাইট মাত্রা অতিরিক্ত প্রেমের কথা বলছে তখনই বুঝে নিবেন এটি ভূয়া সাইট।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আয় :

বর্তমান যুগে সোশ্যাল মিডিয়া যেমন ফেসবুক টুইটার ইনস্টাগ্রাম স্ন্যাপচ্যাট প্রচুর ব্যবহৃত হচ্ছে। আমরা শুধু এগুলি চ্যাটিং করার জন্য ব্যবহার করি এবং সময় নষ্ট করি। কিন্তু এগুলোকে কাজে লাগিয়ে আপনি প্রতি মাসে প্রচুর পরিমাণে ইনকাম করতে পারবেন। এসব সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন কোম্পানির বিজ্ঞাপন দিয়ে তাদের থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাকে ধৈর্য সহকারে ফান ফলোয়ার ধরে রাখতে হবে।

ইউটিউব থেকে আয় :

আপনার মাঝে যদি কোন সুখ তো প্রতিভা থাকে আপনি সেটিকে কাজে লাগিয়ে ইউটিউব থেকে আয় করতে পারবেন। অর্থাৎ ধরুন আপনি খুব সুন্দর নাচতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আপনি ইউটিউবে একটি চ্যানেল খুলে প্রতিদিন অথবা একদিন পরপর অথবা প্রতিনিয়ত আপনি সেখানে নাচের ভিডিও আপলোড করলেন। দর্শকদের কাছে আপনার ভিডিও পছন্দ হলে খুব দ্রুত আপনি ১০০০ সাবস্ক্রাইব করে নিতে পারবেন বর্তমানে ১০০০ সাবস্ক্রাইব ইউটিউব থেকে ইনকাম করা সম্ভব। ইউটিউব এ একবার ইনকাম শুরু হলে আপনি অনেক পরিমানে ইনকাম করতে পারবেন প্রতি মাসেই। অনেকে মনে করেন শুধুমাত্র ফালতু ফানি ভিডিওগুলো দর্শকদের বেশি ভিউ পাওয়া যায়। তবে এসব করে বেশিদিন ইউটিউব থেকে আয় করা সম্ভব নয়। আপনাদের কাছে অনুরোধ ফ্যান ফলোয়ারের কথা চিন্তা না করে ভালো মানের ভিডিও বানাবেন এবং শিক্ষনীয় ভিডিও বানাবেন এক্ষেত্রে আপনার একটু সময় লাগলেও পরবর্তীতে আপনার যথেষ্ট পরিমাণে ইনকাম করতে পারবেন।

অনলাইন পাঠ দানের মাধ্যমে ইনকাম :

আমাদের মাঝে অনেকেই আছে যারা পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষকদের সাথে জড়িত এতে করে মাসে একটি ইনকাম আমাদের হাতে আছে কিন্তু যুগের বিকাশে পড়াশোনা শুধুমাত্র অফলাইনে সীমাবদ্ধ নয় এই বিস্তার দুনিয়াজুড়ে আপনি এখন অনলাইনে শিক্ষার্থীদের পরিয়ে প্রতিমাসের ৩০ থেকে ৫০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আমাদের দেশে অনেক অনলাইন স্কুল রয়েছে আপনি তাদের সাইট ভিসিট করে ধারণা নিয়ে কাজ শুরু করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button