আজকাল অনেক মানুষ এমন আছে যারা কথা বলা মাত্রই পরক্ষণেই ভুলে যায়। সাধারণ ভাবে বলতে গেলে মানুষের স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়ার কারনেই এমনটা ঘটে থাকে বলায় যায়।যদি আপনার সাথেও এমনটাই ঘটে থাকে বা আপনি এমন সমস্যার সম্মুখীন হয়ে পড়েন তবে আজকের পোস্টটির কথা গুলো আপনার জন্যে অনেক অনেক মূল্যবান হবে। আপনি পুরো পোস্টটি দয়া করে ধৈর্য্য সহকারে পড়ুন। কারন ভুলে যাওয়ার আসক্তি থেকে বাচার জন্য এই পোস্টটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ আপনার জন্য। Read in English

ভুলে যাওয়ার এই রোগকে ইংরেজিতে ডিমেনশিয়া (Dementia) বলে হয়ে থাকে। এই রোগ যে শুধু বয়স্কদের হয় তা কিন্তু নয়, এই রোগ তরুণ প্রজন্মদের মধ্যেও হয়ে থাকে। তবে বয়স্কদের মধ্যে বেশিরভাগ এই সমস্যা হয় না কিন্তু তরুণ প্রজন্মের মধ্যে এই রোগ বেশিরভাগই ঘটে থাকে। তারা পড়াশোনা করে বা মুখস্থ করে লিখতে শুরু করে তখন তারা পড়ার অনেক কিছুই ভুলে যায়। তখন তারা আর কিছু মনে করেও লিখতে পারে না কারন তাদের মনে করার স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলে। এজন্য দরকার প্রতিদিনের খাবারে এমন কিছু পুষ্টিগুন সমৃদ্ধ খাবার যা স্মৃতিশক্তিকে প্রখর করতে এবং মস্তিষ্ক সচল রাখতে সাহায্য করবে।

তৈলাক্ত মাছ

তৈলাক্ত মাছে অনেক তেল ছাড়াও অনেক পুষ্টিগুন আছে। যা দেহের অনেক কাজ সাধন করে দেহের উপকার করে। তৈলাক্ত মাছে ওমেগা-৩ এর পরিমাণ বেশি থাকে।এছাড়াও এসিড ও ভিটামিন-ডি তৈলাক্ত মাছে অনেকাংশে থাকে। বিভিন্ন ধরনের সামুদ্রিক মাছ যেমন- টুনা মাছ, হাঙ্গর ইত্যাদি ছাড়াও আরো অনেক সামুদ্রিক মাছ তৈলাক্ত আছে এছাড়াও স্যামন, ইলিশ, সিলভার কাপ, পাঙ্গাস মাছ তৈলাক্ত মাছ।প্রতিদিন তৈলাক্ত মাছ বা মিঠা পানির মাছ ও সামুদ্রিক মাছ খেলে অনেক উপকার হবে কারণ তৈলাক্ত মাছে অনেক ফ্যাটি এসিড থাকে। এ ফ্যাটি এসিডের কারণে স্মৃতিশক্তি অনেকটা দ্রুতই বাড়বে। এখন জানা যাক কোন খাবার গুলোতে স্মৃতিশক্তির বৃদ্ধি পাবে।

আখরোট

আখরোট হচ্ছে এক প্রকার বাদাম যাকে ইংরেজিতে বলা হয় walluts. আখরোটে আছে ৬৫% চর্বি এবং ১৫% প্রোটিন থাকে তবে কার্বোহাইড্রেটের পরিমান কম পরিমানে থাকে। প্রতিদিন অন্তত দুইটি করে আখরোট খেলে মস্তিষ্ক সচল থাকে। শুধু তাই ই নয় বয়স বাড়ার সাথে সাথে মানুষের যে স্মৃতিশক্তি লোপ পায় তা অনেকাংশে রুখতে সাহায্য করে এই আখরোট।

ব্লুবেরি

ব্লুবেরি একধরনের ফল। যা দেখতে কিছুটা আঙুরের মতই তবে আঙুর নয়। এই ফলে প্রচুর পরিমানে ফাইবার ও এন্টি অক্সিডেন্ট থাকে। যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। শুধু তাই নয় ক্ষুধা পেলে অস্বাস্থ্যকর বা উল্টাপাল্টা খাবার খাওয়ার চেয়ে ব্লুবেরি খাওয়া অনেক ভালো। এটি একটি স্বাস্থ্যকর খাবার। এটি খাওয়াতে মস্তিষ্ক প্রখর থাকে। সেই সাথে স্মৃতিশক্তিও দ্বিগুণ হারে দারুণভাবে বাড়তে থাকে।

কুমড়োর বীজ

কুমড়োর বীজের উচ্চমানের লাইপোপ্রোটিন এবং ফ্যাটিএসিড, প্রোটিন, ম্যাগনেসিয়াম, লাইফোফিলিক অক্সিডেন্ট থাকে। এছাড়াও কুমড়োর বীজের রয়েছে প্রচুর প্রচুর পরিমাণে ফাইবার ও প্রোটিন। চিন্তাভাবনা এবং স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর জন্যই এই এই খাবারটি নিয়মিত খাবারের মেনুতে রাখা খুব ভালো। এটি একটি পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাবার। শুধু স্মৃতিশক্তি বাড়ায় তা কিন্তু নয় অতিরিক্ত মানসিক চাপে ভুক্তভোগী হয়ে থাকলেও কুমড়োর বীজ নিয়মিত খেলে চাপ মুক্ত থাকা যায়।

ডার্ক চকলেট

ডার্ক চকলেট এক ধরনের চকলেট যা খেতে খুব একটা স্বাদের নয়।তবে ডার্ক চকলেট স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর জন্য বেশ উপকারী। শুধু তাই নয় এটি বার্ধক্যজনিত রোগ আটকাতেও সাহায্য করে অনেক। আবার মানসিক চাপ থাকলেও কমায়। অবসাদ দূর করে দেয় এবং স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে দ্রুত কাজ করে।

কফি

কফি এক ধরনের দানাদার খাদ্য। যা খেলে শরীর অনেকটাই তরতাজা থাকে। ক্লান্ত শরীরে কফি খেলে অনেক শক্তি পাওয়া যায় এবং শরীরের ক্লান্তি দূর করে। কফির ভালো দিকও রয়েছে অনেক যদিও ক্যাফেইনের শরীরের জন্য খুব একটা ভালো নয়। তবে কফি স্মৃতি ধরে রাখার জন্য খুবই দারুণ কার্যকরী একটি খাবার।এটি দীর্ঘক্ষন স্মৃতি ধরে রাখতে সাহায্য করে। প্রতিদিন স্বল্প মাত্রার কফি খেলেই যথেষ্ট। বেশিমাত্রায় হলে এর ভালোর থেকে খারাপের প্রভাবটাই বেশি পড়ে যাবে।

এই সব খাবারই যে শুধু যথেষ্ট স্মৃতিশক্তি বাড়াতে তা কিন্তু নয়। স্মৃতিশক্তি বাড়াতে আরো অনেক কাজ বা খাবার খাওয়া যেতে পারে। যেমন গান শোনাও মস্তিস্কের স্মৃতিশক্তি বাড়ানো যেতে পারে।কারণ অনেকেরই গান পছন্দ হয়ে থাকেন আর গান মস্তিষ্ককে অনেক উত্তেজিত অবস্থায় রাখতে সাহায্য করে। যদি কখনো গান শোনার সময় কারো মস্তিষ্কের ছবি তোলা যায় তাহলে দেখা যাবে যে সুরের প্রভাবে মস্তিষ্কের ভেতরে অনেক সক্রিয় হয়ে উঠছে। যা স্মৃতিশক্তিকে খুব দ্রুত বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। স্মৃতিশক্তি অনেক প্রখর হয়ে ওঠে। ডিমেনশিয়া এর মত স্মৃতিশক্তির এমন সব সমস্যা ঠেকাতে প্রাথমিক অবস্থায় প্রাথমিক চিকিৎসায় এসব ছোটখাটো কাজই যথেষ্ট। তবে আসুন এসব মেনে চলে নিজেদের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.