কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি সমূহ: কাজী নজরুল ইসলাম হলেন বাংলাদেশের জাতীয় কবি। ২৪ মে ১৮৯৯ সালে কবি কাজী নজরুল ইসলাম ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার আসানসোল মহাকুমার চুরুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ছোট থেকেই নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে তিনি বড় হয়েছেন। স্কুলের গন্ডি পার হওয়ার আগেই ১৯১৭ খ্রিস্টাব্দে তিনি ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়েছিলেন। মুসলিম পরিবারের সন্তান ও শৈশবে ইসলামী শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েও তিনি বড় হয়েছিলেন ধর্মনিরপেক্ষ একজন মানুষ হিসেবে। এবং তিনি তার মধ্যে লালন করেছিলেন একটি বিদ্রোহী সত্তা। কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি সমূহ। 

বিংশ শতাব্দীর প্রধান বাঙালি কবি এবং সঙ্গীতকার ছিলেন কাজী নজরুল ইসলাম। তার মাত্র ২৩ বছরের সাহিত্যিক জীবনের সৃষ্টি যে প্রাচুর্য রয়েছে তা তুলনাযর অধিক। আজকের এই নিবন্ধে মাধ্যমে আমরা আপনাদের সামনে উল্লেখ করব কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত সকল উক্তি এবং বাণীসমূহ। আপনি যদি কবি কাজী নজরুল ইসলামের একজন ভক্ত হয়ে থাকে তাহলে আজকের এই উক্তি এবং বাণী গুলো অবশ্যই আপনার ভালো লাগবে। কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি সমূহ দেখুন আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে।কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি সমূহ। 

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট এর খরচ কত?

কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

কাজী নজরুল ইসলাম তার জীবনে বিভিন্ন ক্ষেত্রের জন্য উক্তি তৈরি করেছেন। তার বিভিন্ন কবিতা ছড়া এবং রচনা থেকে এই উক্তিগুলো সংগ্রহ করা হয়েছে। কাজী নজরুল ইসলামের বিভিন্ন প্রবন্ধ কবিতা ছড়া এবং সাহিত্য সমূহ থেকে সংগ্রহকৃত এই উক্তিগুলো আপনাদের অবশ্যই ভালো লাগবে। কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি সমূহ। 

Famous-Quotes-of-Kazi-Nazrul-Islam

প্রেম ও ভালোবাসা নিয়ে কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি

  • ভালোবাসার কোনো অর্থ বা পরিমাণ নেই।
  • তুমি সুন্দর তাই চেয়ে থাকি প্রিয়, সেকি মোর অপরাধ? চাঁদেরে হেরিয়া কাঁদে চকোরিণী বলে না তো কিছু চাঁদ।
  • আমার যাবার সময় হল দাও বিদায়, মৎস্য আঁখি দুয়ার খোল দাও বিদায়।
  • মিথ্যা শুনিনি ভাই, এই হৃদয়ের চেয়ে বড় কোনো মন্দির-কাবা নাই।
  • হয়তো তোমার পাব দেখা যেখানে ওই নত আকাশ চুমছে বনের সবুজ রেখা।

বিদ্রোহ ও প্রতিবাদ বিষয়ে কাজী নজরুলের বিখ্যাত উক্তি

  • বল বীর – বল উন্নত মম শির! শির নেহারি আমারি নতশির ওই শিখর হিমাদ্রির।
  • আমি বেদুঈন, আমি চেঙ্গিস, আমি আপনারে ছাড়া করি না কাহারে কুর্ণিশ।
  • আমি বন্ধন-হারা কুমারীর বেণী, তন্বী-নয়নে বহ্নি, আমি ষোড়শীর হৃদি – সরসিজ প্রেম উদ্দাম, আমি ধন্যি।
  • আমি বিদ্রোহী ভন্ড, ভগবান বুকে এঁকে দিল পদ-চিহ্ন।
  • ফাঁসির মঞ্চে গেয়ে গেল যারা জীবনের জয়গান, আসি অলক্ষ্যে দাঁড়ায়েছে তারা দিবে কোন বলিদান?

এটিএম বুথে কার্ড আটকে গেলে কি করবেন?

নারীদের নিয়ে কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি

  • কোন কালে একা হয়নিকো জয়ী পুরুষের তরবারী প্রেরণা দিয়েছে শক্তি দিয়েছে বিজয়লক্ষ্মী নারী।
  • বিশ্বে যা-কিছু মহান সৃষ্টি চির-কল্যাণকর
    অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর।
    বিশ্বে যা-কিছু এল পাপ-তাপ বেদনা অশ্রুবারি
    অর্ধেক তার আনিয়াছে নর, অর্ধেক তার নারী।
  • সর্বসহা কন্যা মোর! সর্বহারা মাতা!
    শূন্য নাহি রহে কভূ মাতা ও বিধাতা!
  • কান্না হাসির খেলার মোহে অনেক আমার কাটল বেলা
    কখন তুমি ডাক দেবে মা, কখন আমি ভাঙব খেলা ?
  • নর-ভাবে আমি বড় নারী ঘেঁষা! নারী ভাবে, নারী বিদ্বেষী!

ধর্ম, মানবতা বিষয়ে কাজী নজরুলের বিখ্যাত উক্তি

  • নামাজ পড়, রোজা রাখ, কলমা পড় ভাই,তোর আখেরের কাজ করে নে সময় যে আর নাই।
  • পুঁথির বিধান যাক পুড়ে তোর
    বিধির বিধান সত্য হোক।
  • গাহি সাম্যের গান –
    মানুষের চেয়ে বড় কিছু নাই , নহে মহীয়ান।
  • মসজিদেরই পাশে আমার কবর দিও ভাই
    যেন গোরে থেকেও মোয়াজ্জিনের আজান শুনতে পাই।
  • মরিছে হিন্দু, মরে মুসলিম এ উহার ঘায়ে আজ,
    বেঁচে আছে যারা মরিতেছে তারা, এ-মরণে নাহি লাজ!
    জেগেছে শক্তি তাই হানাহানি,
    অস্ত্রে অস্ত্রে নব জানাজানি!
    আজি পরীক্ষা-কাহার দস্ত হয়েছে, কত দরাজ!
    কে মরিবে কাল সম্মুখ-রণে, মরিতে কা’রা নারাজ!

কাজী নজরুল ইসলামের প্রেরণার বাণী

  • আসবে ঝড়, নাচবে তুফান, টুটবে সকল বন্ধন,
    কাঁপবে কুটীর সেদিন ত্রাসে, জাগবে বুকে ক্রন্দন-
    টুটবে যবে বন্ধন!
    পড়বে মনে, নেই সে সাথে
    বাঁধবে বুকে দুঃখ-রাতে-
    আপনি গালে যাচবে চুমা,
    চাইবে আদর, মাগবে ছোঁওয়া,
    আপনি যেচে চুমবে-
    বুঝবে সেদিন বুঝবে।
  • সত্য যদি লক্ষ্য হয়, সুন্দর ও মঙ্গলের সৃষ্টি সাধনা ব্রত হয়, তবে তাহার লেখা সম্মান লাভ করিবেই করিবে।
  • “রক্ত ঝরাতে পারি না তো একা, তাই
    লিখে যাই এ রক্ত লেখা।
  • আজি হ’তে শত বর্ষে আগে, কে কবি,
    স্মরণ তুমি করেছিলে আমাদের শত অনুরাগে।
  • আজি হ’তে শত বর্ষে আগে, কে কবি,
    স্মরণ তুমি করেছিলে আমাদের শত অনুরাগে।

দুঃখ নিয়ে কাজী নজরুল ইসলামের বাণী

  • আসবে আবার আশিন-হাওয়া, শিশির-ছেঁচা রাত্রি,
    থাকবে সবাই – থাকবে না এই মরণ-পথের যাত্রী!
    আসবে শিশির-রাত্রি!
    থাকবে পাশে বন্ধু স্বজন,
    থাকবে রাতে বাহুর বাঁধন,
    বঁধুর বুকের পরশনে
    আমার পরশ আনবে মনে-
    বিষিয়ে ও-বুক উঠবে-
    বুঝবে সেদিন বুঝবে!
  • কপালে সুখ লেখা না থাকলে সে কপাল পাথরে ঠুকেও লাভ নেই। এতে কপাল যথেষ্টই ফোলে, কিন্তু ভাগ্য একটুও ফোলে না ।
  • এই নীরব নিশীথ রাতে
    শুধু জল আসে আঁখিপাতে!
  • আমি নিজেই নিজের ব্যথা করি সৃজন
    শেষে সেই আমারে কাঁদায়, যারে করি আপনারি জন।

আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমরা কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত সকল বাণী সমূহ উল্লেখ করেছি। আশা করছি এই তথ্যগুলো আপনাদের অবশ্যই ভালো লাগবে। কাজী নজরুল ইসলাম সহ যেকোন বিখ্যাত ব্যক্তিদের উক্তি সমূহ জানতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।  আমাদের সাথে থাকার জন্য সকলকে ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.