বলা হয়ে থাকে যে স্বাস্থ্যই সম্পদ। আর এই স্বাস্থ্যকে ভালো রাখার জন্য আমরা কত কি না করে থাকি। শরীরকে সুস্থ ও সবল রাখতে এবং ঘন ঘন অসুখ-বিসুখ থেকে মুক্তি পেতে আমরা আমাদের দৈনন্দিন খাবারের সাথে নানান ধরনের জিনিস অন্তর্ভুক্ত করে থাকি। এমন অনেক জিনিস আছে যা খাওয়ার জন্য উপকারী এবং আমাদের শরীরের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। এবং এই সকল খাবার গুলো আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। পুষ্টিবিদদের মতে এমন কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো ভিজিয়ে খেলে স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক গুণে বেড়ে যায়। Read in English

আমরা আমাদের আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আপনাদের সেই গুরুত্বপূর্ণ খাবার গুলি সম্পর্কে জানাবো। যেগুলো ভিজিয়ে রেখে খেলে তাদের পুষ্টি গুণ বৃদ্ধি পায় এবং শরীরের জন্য খুবই ভালো। এই খাবারগুলো আপনাকে রক্তস্বল্পতা, হাড়ের দুর্বলতা ছাড়াও ক্লান্তি ও স্নায়বিক দুর্বলতা কমাতে সাহায্য করবে।

মেথি বীজ ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা

image
মেথি বীজ

মেথি বীজ ফাইবার সমৃদ্ধ এবং এটি অন্ত্র পরিষ্কার রাখতে ভূমিকা পালন করে, এছাড়াও মেথি বীজ কোষ্ঠকাঠিন্য চিকিৎসা তে ও ব্যবহার করা হয়।

প্রতিদিন রাতে এক চামচ মেথি বীজ পানিতে ভিজিয়ে রেখে সকালে খালি পেটে পান করুন। এর ফলে আপনার হজমের কোন সমস্যা হবে না। মেথি ভিজিয়ে খাওয়া ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ভালো, এটি শরীরে শর্করার মান নিয়ন্ত্রণ রাখে। এছাড়াও ঋতুস্রাবের সময় ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে মহিলারা মেথি বীজ খেতে পারেন।

পোস্ত ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা

image
পোস্ত

পোস্ট অফিস থায়ামিন, ফোলেট এবং প্যান্টোথেনিক এসিড এর জন্য অন্যতম প্রধান উৎস। এই ভিজে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি রয়েছে যা বিপাক পদ্ধতিতে সাহায্য করে এবং ওজন নিয়ন্ত্রণ করে। পোস্ত বীজকে ফ্যাট কাটার বলেও ডাকা হয়। যারা নিজের ওজন কমাতে চান তাদের জন্য প্রস্তাবিত অধিক উপকারী হতে পারে। প্রস্তাবিত ভিজিয়ে খাওয়ার মাধ্যমে শরীরে জমা চর্বি কমানো যায়।

শনের বীজ খাওয়ার উপকারিতা

image
শনের বীজ

শনের বীজ হলো ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড ভান্ডার। কোলেস্টেরল সমস্যায় ভোগা মানুষদের জন্য এটি খুবই উপকারী। এই বিচ শরীরে ভালো এবং খারাপ কোলেস্টরেল এর অনুপাত বজায় রাখতে সাহায্য করে। শনের বীজ পরিপাক তন্ত্রকে পরিষ্কার ও স্বাস্থ্যকর রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও সকালে খালি পেটে পান করলে আপনার পেট সুস্থ থাকে।

কিসমিস ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা

image
কিসমিস

কিসমিসে প্রয়োজনীয় পুষ্টি সহ ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম ও আয়রন বিদ্যমান। নিয়মিত ভেজানো কিসমিস খেলে শরীরের ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি বন্ধ করা যায়। ভেজানো কিসমিস নিয়মিত খেলে ত্বককে সুস্থ দাগহীন রাখতে সাহায্য করে। কিডনিতে পাথর বা রক্তস্বল্পতার মত সমস্যা থেকেও কিসমিস মুক্তি দেয়। এছাড়াও এসিডিটি থেকে মুক্তি পেতে কিসমিস সারারাত ভিজিয়ে রেখে সকালে খালি পেটে খেয়ে নিন।

সবুজ মুগ ডাল ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা

image
সবুজ মুগ ডাল

সবুজ মুগডালে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি, ফাইবার এবং প্রোটিন রয়েছে। এটি কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। এছাড়াও উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের জন্য খুব উপকারী। সবুজ মগডালে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বিদ্যমান যা ক্যান্সার ডায়াবেটিস সহ দীর্ঘস্থায়ী রোগের ঝুঁকি কমাতে ভূমিকা পালন করে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: ওপরে আলোচনায় পাঁচটি খাবারের গুণগত মান সম্পর্কে তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে যা কোনোভাবেই কোনো চিকিৎসার বিকল্প হতে পারে না। যে কোন রোগের জন্য অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.