বর্তমান সময়ের সফটওয়্যার মেগনেট বিনিয়োগকারী এবং জনদরদি বিল গেটস নতুন বাস্তবতার এক ধরনের উদাহরণ হয়ে উঠেছেন বলা যায়। মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস সম্প্রতি একটি নতুন ধরনের প্রযুক্তির ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন। যা বাজারে থাকা স্মার্টফোনগুলোর বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। বিলগেটস মনে করেন এ প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে মানুষের নানাবিধ সমস্যার সমাধান করা যেতে পারে। Read in English

বিল গেটস এর ভবিষ্যৎবাণী করার সাহস এটাই প্রথম ছিল না। এর আগেও তিনি আসন্ন মহামারী নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন যা একদম অক্ষরে অক্ষরে সত্যি হয়েছে। এবার তিনি বলেছেন ইলেকট্রনিক্স ট্যাটু নিয়ে। এবং তিনি মনে করেন ইলেকট্রনিক ট্যাটু ভবিষ্যতে স্মার্টফোনের বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে।

ইলেকট্রনিক ট্যাটু কি?

ইলেকট্রনিক ট্যাটু এমন এক ধরনের ট্যাটু যা দেখতে ট্যাটুর মত হলেও এটা বিভিন্ন ধরনের তথ্য আদান প্রদান করতে পারবে। এ ট্যাটুর সাহায্যে মানবদেহে তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করা যাবে। এই ট্যাটু কাজ করবে ছোট ছোট সেন্সর বা ট্র্যাকার গুলোর সঙ্গে যা একটি বিশেষ কালীর মাধ্যমে তথ্য আদান প্রদান করে।

ইলেকট্রনিক ট্যাটুর ভবিষ্যৎ

বিল গেটস মনে করেন চাওটিক মুন কোম্পানির নতুন প্রযুক্তি ইলেকট্রনিক ট্যাটু একটি বায়োটেকনোলজি ভিত্তিক প্রক্রিয়া। যার মাধ্যমে মানবদেহে তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করা যাবে। মূলত এই ট্যাটু প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা এবং ক্রিয়া তত্ত্বের ডাটা সংগ্রহ এবং সংরক্ষণ করার কাজে ব্যবহৃত হবে। আরে তথ্যের মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হলে তিনি মনে করেন। পাশাপাশি এই চ্যাটের মাধ্যমে মানুষের শারীরিক কর্মক্ষমতাকে আরো বেশি উন্নত করা সম্ভব বলে মনে করেন।

কিভাবে ইলেকট্রনিক ট্যাটু মানুষের উপর স্থাপন করা হবে এ ধরনের প্রশ্নের উত্তরে চাওতিক মন সংস্থাটি জানান যদিও এই ইলেকট্রনিক ট্যাটু 3 নিয়ে এখনো বিষাদ আকারে গবেষণা চলছে তবে সংস্থাটি বলেছে এটি ত্বকে অস্থায়ীভাবে প্রয়োগ করা হবে। এটি কাজ করবে ছোট ছোট কিছু সেন্সর বা ট্রাকটারের সাহায্যে। যা একটি বিশেষ কালীর মাধ্যমে তথ্য প্রেরণ এবং গ্রহণ করবে।

তবে যাই হোক ইলেকট্রনিক ট্যাটুর প্রাথমিক এই বাস্তবায়ন কে বিল গেটস যথেষ্ট বলে মনে করছেন না। তিনি ভবিষ্যতে এই ডিভাইসটিকে আজকের স্মার্টফোনের বিকল্প হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চান। কি কারণে তিনি স্মার্টফোনের বিকল্প হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চান এ সম্পর্কে তিনি বলেন ইতিমধ্যে বেশ কয়টি হলিউড সিনেমায় বার্তা আদানপ্রদান, ঠিকানা দেখতে ইলেকট্রনিক্স এর ব্যবহার লক্ষ্যণীয়ভাবে ফুটে উঠেছে। যা ভবিষ্যতে খুব দ্রুত বাস্তবায়িত হবে।

তবে বিল গেটসের এ ধারণা কবে সফল হবে তা এখনও বলা যাচ্ছে না। তুমি বিলগেটস এবং তার দল নতুন এই প্রযুক্তির ব্যবহার সবার জন্য উন্মুক্ত করার একটি সহজ উপায় খুঁজছেন। এবং তাদের এই মাধ্যমে যেন খুব সহজেই বিশ্বব্যাপী এই প্রযুক্তির সকল সুযোগ সুবিধা গ্রহণের সুযোগ পায় মানুষ।

এ ধরনের আরো ইন্টারেস্টিং তথ্য পেতে আমাদের সাইট ঘুরে আসতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.